Quran Sharif Bangla PDF Download – বাংলা কুরআন শরীফ ডাউনলোড (30 পারা)

Quran Sharif Bangla PDF Download – বাংলা কুরআন শরীফ ডাউনলোড – আমাদের এখান থেকে বাংলা উচ্চারণ সহ কোরআন শরীফ pdf download করে নিতে পারবেন সহজে। আমরা এখানে ২টি পিডিএফ দিয়েছি। একটি বাংলা উচ্চারণ এবং আরেকটি বাংলা উচ্চারণ এবং বাংলা অর্থসহ। নিচেই 30 পারা কোরআন শরীফ বাংলা অর্থসহ পিডিএফ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

Quran Sharif Bangla PDF Download লিংক

30 পারা কোরআন শরীফ বাংলা অর্থসহ

Quran sharif with bangla meaning pdf

ডাউনলোড
আল কোরআন বাংলা অর্থ ও বাংলা উচ্চারণসহ ৩০ পারা পিডিএফ

Quran sharif with bangla pronunciation and meaning pdf 

ডাউনলোড

 

Quran Sharif Bangla PDF পরিচিতির কিছু অংশ-১

কোরআন শরীফ কোরআনের কয়েকটি বিখ্যাত মােজেযা

কোরআন শরীফ কোরআনের কয়েকটি বিখ্যাত মােজেযা

কোরআন শরীফের সূরা আল ফজর’-এর ৭ নম্বর আয়াতে ‘ইরাম’ নামক একটি গােত্র কিংবা শহরের কথা বলা হয়েছে; কিন্তু ইরাম’-এর নাম কোনাে ইতিহাসে পাওয়া যায় না। তাই কোরআন | শরীফের তাফসীরকাররাও সুস্পষ্টভাবে এ শব্দটির অর্থ বলতে সক্ষম হননি।

১৯৭৩ সালে সিরিয়ায় একটি পুরনাে শহরে খনন কার্যের সময় কিছু পুরনাে লিখন পাওয়া যায়। এ সব লিখন পরীক্ষা করে সেখানে চার হাজার বছরের একটি পুরনাে সভ্যতার নিদর্শন পাওয়া গেছে। এ | লিখনগুলাের মধ্যে দেখা গেছে ‘ইরাম শহরের উল্লেখ আছে। এক সময় এ অঞ্চলের লােকজন ইরাম’ শহরের লােকজনের সংগে ব্যবসা-বাণিজ্য করতাে। এ সত্যটা আবিষ্কৃত হলাে মাত্র সেদিন, অর্থাৎ ১৯৭৩ সালে। প্রশ্ন হচ্ছে, দেড় হাজার বছর আগে নাযিল করা কোরআন শরীফে এ শহরের নাম এলাে | কি করে? আসলে কোরআন শরীফ হচ্ছে আল্লাহর বাণী, আর আল্লাহ তায়ালা এখানে ‘ইরাম’ শহরের উদাহরণ দিয়েছেন। T কোরআন শরীফে হযরত মােহাম্মদ (স.)-এর একজন দুশমনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে, সে হচ্ছে আবু লাহাব।

আরো দেখুন- ১০০০+সেরা ইসলামিক বই PDF

ওহী নাযিল হওয়ার পর যদি আবু লাহাব ইসলাম কবুল করতাে তাহলে কোরআন শরীফের আয়াত মিথ্যা প্রমাণিত হতাে, কিন্তু আবু লাহাব ইসলাম কবুল করেনি এবং কোরআন শরীফের বাণী | চিরকালের জন্য সত্য হয়েই রয়েছে। | কোরআন শরীফে সূরা আর রােম’-এ পারস্য সাম্রাজ্য ধ্বংসের ভবিষ্যদ্ববাণী করা হয়েছে এবং যে সময় | এ ওহী নাযিল হয় তখন মানুষের পক্ষে বিশ্বাস করা অকল্পনীয় ছিলাে, রােমকদের যারা পরাজিত করলাে তারা অচিরেই তাদের হাতে ধ্বংস হতে পারে, কিন্তু কোরআন শরীফ এ বিষয়ে ভবিষ্যদ্ববাণী করেছে এবং তা এ আয়াত নাযিল হবার ৭ বছর সময়ের মধ্যে, অর্থাৎ ৬২৭ খৃষ্টাব্দে এসে সত্য প্রমাণিত হয়েছে।

Quran Sharif Bangla PDF পরিচিতির কিছু অংশ-২

এ আয়াতে ‘ফী আদনাল আরদ’ বলে আল্লাহ তায়ালা গােটা ভূ-মন্ডলের যে স্থানটিকে সর্বনিম্ন অঞ্চল বলেছেন তা ছিলাে সিরিয়া, ফিলিস্তিন ও জর্দানের পতিত ‘ডেড সী’ এলাকা। এ ভূখন্ডেই ৬২৭ খৃস্টাব্দে রােমানরা ইরানীদের পরাজিত করে। মাত্র কিছুদিন আগে আবিস্কৃত ভূ-জরিপ অনুযায়ী এটা প্রমাণিত হয়েছে, |এ এলাকাটা সারা দুনিয়ার মধ্যে আসলেই নিন্মতম ভূমি। ‘সী লেবেল’ থেকে ৩৯৫ মিটার নীচে। এটা যে গােটা ভূ-খন্ডের সবচেয়ে নীচু জায়গা এটা ১৪শ বছর আগের মানুষরা কি করে জানবে। বিশেষ করে এমন একজন মানুষ, যিনি ভূ-তত্ত্ব প্রাণীতত্ত্ব ইত্যাদি কোনাে তত্ত্বেরই ছাত্র ছিলেন না।

| কোরআন শরীফের এক জায়গায় সমুদ্রের তরংগ সম্বন্ধে বলা হয়েছে, ঢেউ যখন অগ্রসর হয় তখন | দুটি ঢেউয়ের মধ্যবর্তী স্থান অন্ধকার থাকে। আমরা জানি, হযরত মােহাম্মদ (স.) মরুভূমি অঞ্চলের সন্তান ছিলেন, তিনি কখনাে সমুদ্র দেখেননি। সুতরাং সমূদ্র তরংগের দুটি ঢেউয়ের মধ্যবর্তী স্থান যে অন্ধকার হয় তা তিনি জানবেন কি করে? এতে প্রমাণিত হয়, হযরত মােহাম্মদ (স.) নিজে কোরআন রচনা করেননি। আসলেই প্রচন্ড ঝড়ের সময় সমুদ্র যখন বিক্ষুব্ধ হয় তখন দ্রুতগতিসম্পন্ন তরংগগুলাের মধ্যবর্তী অংশ সম্পূর্ণ অন্ধকারাচ্ছন্ন মনে হয়।

কোরআনের আরেকটি বিস্ময়কর বিষয় হচ্ছে, লােহা ধাতুটির বিবরণ। কোরআনের সূরা আল | হাদীদ’-এ আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, “আমি লােহা নাযিল করেছি, যাতে রয়েছে প্রচুর শক্তি ও মানুষদের

Quran Sharif Bangla PDF পরিচিতির কিছু অংশ-৩

জন্যে প্রভূত কল্যাণ।’ লােহা নাযিলের বিষয়টি তাফসীরকাররা নানাভাবে ব্যাখ্যা করতে চেয়েছেন; | কিন্তু যেখানে আল্লাহ তায়ালার স্পষ্ট নাযিল’ শব্দটি রয়েছে সেখানে এতাে ব্যাখ্যা বিশ্লেষণের দিকে | না গিয়ে আমরা যদি কোরআনের আক্ষরিক অর্থের দিকে তাকাই তাহলে দেখতে পাবাে, আধুনিক বিজ্ঞানের উদ্ভাবনীও ঠিক একথাটাই বলেছে। পদার্থবিজ্ঞানীরা বলেন, লােহা উৎপাদনের জন্যে যে ১৫ |

লক্ষ সেলসিয়াস তাপমাত্রা প্রয়ােজন তার কোনাে উপকরণ আমাদের পৃথিবীতে নেই। এটা একমাত্র [সূর্যের তাপমাত্রা দ্বারাই সম্ভব। হাজার হাজার বছর আগে সূর্যদেশে প্রচন্ড বিস্ফোরণের ফলে লােহা নামের। এ ধাতু মহাশূন্যে ছিটকে পড়ে। পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ শক্তির টানে তা পৃথিবীতে নাযিল হয়। লােহা সম্পর্কে আধুনিক বিজ্ঞানের আবিষ্কৃত তথ্য ঠিক একথাটাই প্রমাণ করেছে। দেড় হাজার বছর আগের | আরব বেদুঈনরা বিজ্ঞানের এ জটিল সূত্র জানবে কি করে?

এ সূরার আরেকটি অংকগত মােজেযাও রয়েছে।

ক্রমিক নম্বর অনুযায়ী ‘সূরা আল হাদীদ 1 কোরআনের ৫৭তম সূরা। আরবীতে ‘সূরা আল হাদীদ’- এর সংখ্যাগত মান হচ্ছে ৫৭। শুধু ‘আল | হাদীদ’ শব্দের অংকগত মান হচ্ছে ২৬, আর লােহার আণবিক সংখ্যা মানও হচ্ছে ২৬। ]

আশাকরি 30 পারা কোরআন শরীফ বাংলা অর্থসহ এবং উচ্চারণসহ (Quran Sharif Bangla PDF) ডাউনলোড করে নিয়েছেন।  ইসলামিক বই বা অন্য কোনো বই ডাউনলোড করতে চাইলে আমাদের সাইটে প্রতিদিন ভিজিট করুন এবং যেকোনো সমস্যা বা নিয়মিত বইয়ের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক এবং ফলো করে করে সাথে থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top