আদর্শ বিবাহ ও দাম্পত্য PDF – আবদুল হামীদ

আদর্শ বিবাহ ও দাম্পত্য PDF Download – আমাদের এখান থেকে আদর্শ বিবাহ ও দাম্পত্য pdf download করে নিতে পারবেন।  নিচেই বইটির পিডিএফ ডাউনলোড লিংক পেয়ে যাবেন

আদর্শ বিবাহ ও দাম্পত্য PDF Book সম্পর্কে আরোও কিছু তথ্যঃ

বইয়ের নাম আদর্শ বিবাহ ও দাম্পত্য
লেখকের নাম

আল্লামা আবদুল হামীদ ফাইযী আল মাদানী

টাইপ পিডিএফ
ভাষা বাংলা

PDF এর কিছু অংশ- ১

বৈবাহিক সম্পর্ক কায়েম করার ব্যাপারে কোন স্বীনদার মানুষ যদি কারাে কাছে পরামর্শ নেয় তবে পাত্র বা পাত্রীর দোষ-গুণ খুলে বলা অবশ্যই উচিত। (মিড৩৩২ ৪) যেহেতু মুসলিম ভাই যদি তার সমক্ষে, তার জানতে-শুনতে কোন বেম্বীন বা বিদআতী ও নােংরা পরিবেশে প্রেমসূত্র স্থাপন করে বিপদে পড়ে তবে নিশ্চয় এর দায়িত্ব সে বহন করবে। যেহেতু সঠিক পরামর্শ দেওয়া এক আমানত। অবশ্য অহেতুক নিছক কোন ব্যক্তিগত স্বার্থে বা হিংসায় অতিরঞ্জন করে বা যা নয় তা বলে বিয়ে ভাঙ্গানােও মহাপাপ। তাছাড়া পরহিতৈষিতা দ্বীনের এক প্রধান লক্ষ্য। ( ডি ৪১৬৬নং) এ লক্ষ্যে পৌছনাে সকল মুসলিমের কর্তব্য।

পরন্ত “যে ব্যক্তি কোন মুসলিম ভায়ের কোন বিপদ বা কষ্ট দূর করে আল্লাহ কিয়ামতে তার বিপদ ও কষ্ট দূর করবেন।” ( মিঃ ২০৪নং) কন্যাদায় আমাদের দেশের বর্তমান সমাজে এক চরম বিপদ। এ বিপদেও মুসলিম ভাইকে সাহায্য করা মুসলিমের কর্তব্য। অর্থ, সুপরামর্শ ও সুপাত্রের সন্ধান দিয়ে উপকার, বড় উপকার। অবশ্য এমন উপকারে নিজের ক্ষতি এবং বদনামও হতে পারে। কারণ, পাত্র দেখে দিয়ে মেয়ের সুখ হলে তার মা-বাবা বলবে, আল্লাহ দিয়েছে।

পক্ষান্তরে দুখ বা জ্বালা-জ্বলন হলে বলবে, অমুক দিলে বা বিপদে ফেললে। অথচ সুখ-দুঃখ উভয়ই আল্লাহরই দান; ভাগ্যের ব্যাপার। তাছাড়া জেনে-শুনে কেউ কষ্ট্রে ফেলে দেয় না। কিন্তু অবুঝ মানুষ অনিচ্ছাকৃত এসব বিষয়ে উপকারীকেও অপকারীরূপে দোষারােপ করে থাকে; যা নির্ঘাত অন্যায়। আর এ অন্যায়ে সবর করায় উপকারীর অতিরিক্ত সওয়াব লাভ হয়।

দ্বীনদার সুপাত্র পেলে অভিভাবকের উচিত বিলম্ব না করা। বাড়িতে নিজেদের খিদমত নেওয়ার উদ্দেশ্যে, আরাে উঁচু শিক্ষিত করার উদ্দেশ্যে (যেহেতু বিয়ের পরও পড়তে পারে) অথবা তার চাকুরির অর্থ খাওয়ার স্বার্থে অথবা গাফলতির কারণে মেয়ে বা বােনের বিয়ে পিছিয়ে দেওয়া বা ‘দিচ্ছি-দিব’ করা তার জন্য বৈধ নয়। (রাফ্যানি ৫৫পৃঃ হাহঃ ২৩৬) প্রিয় নবী ক বলেন, “তােমাদের নিকট যদি এমন ব্যক্তি (বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে) আসে মার দ্বীন ও চরিত্রে তােমরা সন্তুষ্ট তবে তার (সহিত কন্যার) বিবাহ দাও। যদি তা না কর তবে পৃথিবীতে ফিৎনা ও বড় ফাসাদ সৃষ্টি হয়ে যাবে।”

(ত্রি মি ৩০১০নং) তখন ঐ মেয়ের পদস্খলন ঘটলে কোটকাছারি বা দাঙ্গা-কলহও হতে পারে৷ প্রকাশ যে, যুবতীর বয়স হলে উপযুক্ত মােহর, সুপাত্র ও দ্বীনদার বর থাকা সত্ত্বেও অভিভাবক নিজস্ব স্বার্থের খাতিরে অন্যায়ভাবে তার বিবাহে বাধা দিলে সে নিজে কাজীর নিকট অভিযােগ করে বিবাহ করতে পারে। (ফি ২/১২৮) নচেৎ কেবলমাত্র কারাে প্রেমে পড়ে, কোন অপাত্রের সহিত অবৈধ প্রণয়ে ফেসে বের হয়ে গিয়ে কোটে ‘লাভ ম্যারেজ করা এবং অভিভাবককে জানতেও না দেওয়া অথবা তার অনুমতি না নিয়ে বিবাহ করা হারাম ও বাতিল। সাধারণতঃ ব্যভিচারিণীরাই এরূপ বিবাহ করে চিরজীবন ব্যভিচার করে থাকে।

PDF এর কিছু অংশ- ১

পরন্ত প্রেম হল ধূপের মত; যাতে সুবাসের আমেজ থাকলেও তার সূত্রপাত হয় জ্বলন্ত আগুন দিয়ে, আর শেষ পরিণতি হয় ছাই দিয়ে। তাই প্রেমে পড়ে আগ-পিছা চিন্তা না করে স্বামী বা স্ত্রী নির্বাচন করায় ঠকতে হয় অধিকাংশে। | ছেলের বয়স হলেও সত্বর বিবাহ দেওয়া অভিভাবকের কর্তব্য। ছেলেকে ছোট ভেবে অবজ্ঞা করা উচিত নয়। ছেলে বিয়ে করব না’ বললেও তারা কর্তব্যে পিছপা হবে না।

কারণ, ‘পুরুষের একটা বয়স আছে; যখন নারী-নেশা গােপনে মনকে পেয়ে বসে। অবস্থার চাপে সে বিয়ে করবে না বললেও, সত্যি সত্যি না করলেও ঘুরিয়ে ফিরিয়ে নারীসান্নিধ্যের কথা পরের মুখ দিয়ে শুনতেও মন্দ লাগে না। মন বলে, চাই চাই’, মুখ বলে, “চাইনে।’ অবস্থা এই হলে তার বন্ধু-বান্ধবের নিকট থেকেও সে রহস্য উদঘাটিত হতে পারে। সুতরাং অভিভাবক সতর্ক হলে পাপ থেকে রেহাই পেয়ে যাবে।

পক্ষান্তরে অভিভাবক যদি যুবককে বিয়েতে বাধা দেয় অথবা দ্বীনদার সুপাত্রীকে বিয়ে করতে না দিয়ে তার কোন আত্মীয় অপাত্রীকে বড় করে আনতে চায় অথবা পণে পছন্দ

হয়ে বিয়েতে অস্বাভাবিক বিলম্ব করেই যায় তবে সে ক্ষেত্রে মা-বাপের অবাধ্য হওয়া পাপ নয়। ব্যভিচারের ভয় হলে আল্লাহ ও তাঁর রসূলের বাধ্য হওয়াই মুসলিম যুবকের উচিত।

আদর্শ বিবাহ ও দাম্পত্য PDF download Link

পাশের লিংকে ক্লিক করে ডাউনলোড করে নিন বইটি।–> ❤️ডাউনলোড বই❤️

 

আশাকরি উপরের লিংক থেকে বই পিডিএফ ডাউনলোড করে নিয়েছেন। ডাউনলোড করতে কোনো সমস্যা হলে কমেন্টে অবশ্যই জানাবেন। অন্য কোনো বই ডাউনলোড করতে চাইলে আমাদের সাইটে প্রতিদিন ভিজিট করুন এবং যেকোনো সমস্যা বা নিয়মিত বইয়ের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক এবং ফলো করে করে সাথে থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top